এন্ড্রয়েডটিপস এন্ড ট্রিকসটেলিকম

Honor 9X 2020 সালের সেরা ফোন

Honor 9x এর পূর্ববর্তী মডেল Honor 8x বেশ জনপ্রিয় ছিল। যেটা রিলিজ হয়েছিল 2018 সালে। এর পর থেকে ‘US’ ব্যানের কারণে Honor-কে বেশ কিছু দিন অনুপস্থিত দেখেছি আমরা। এবার Honor তাদের নতুন ফোন Honor 9x বাজারে এনেছে। যদিও Honor 9x এই ফোনটি গতবছরের শেষের দিকে রিলিজ হয়েছে, কিন্তু বাংলাদেশের বাজারে আসতে ফোনটির একটু সময় লেগেছে। আমরা আজকে Honor 9x-এর ভালো-মন্দ দিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

Honor 9x হচ্ছে Honor এর Google services সম্বলিত সর্বশেষ ফোন। এরপরে আমরা Honor এর যে ফোন গুলো দেখবো সেগুলোতে থাকবে Huawei mobile services । Honor 9x মিড রেঞ্জের একটি ফোন। 6GB/128GB এর মূল্য বাংলাদেশে 24,990৳।

স্পেসিফিকেশন (Specification):

Display: 6.59 inches IPS LCD Panel, Full HD+ 1080 x 2340 pixels.

RAM & ROM: 4GB/6GB, 64GB/128GB.

Processor: HiSilicon Kirin 710F (12 nm)

Rear Camera: Primary: 48 MP + 8 MP ultrawide + 2MP depth sensor.

Front Camera: Motorized pop-up 16 MP.

Battery: Non-removable Li-Po Battery, 4000mAh.

Other: Android 9.0 (Pie), Motorized pop-up Camera.

ডিজাইন এবং বিল্ড (Design & Build):

Honor 9x Glass বিল্ডের একটি ফোন। এর সামনে এবং পিছনে দুই জায়গাতেই Glass ব্যবহার করা হয়েছে। এবং এর ফ্রেমটি তৈরি করা হয়েছে Aluminum দিয়ে। এর Dimensions হচ্ছে 163.5 x 77.3 x 8.8 mm (6.44 x 3.04 x 0.35 in) । এবং এর ওজন 196.8 g (6.95 oz)। Honor 9x দুটি কালারে ভেরিয়েন্টে পাওয়া যাবে। (1-Sapphire Blue) & (2-Midnight Black)। সামনে পিছনে Glass হওয়াতে হাতে নিয়ে বেশ Premium Feel পাওয়া যায়।

এর পেছনে X’এর Pattern ব্যবহার করা হয়েছে। যেমন মোবাইলের পিছনের দিকটা যখনই আপনি আলোর সামনে নাড়াচাড়া করবেন তখন পিছনের দিকে “(এক্স)” অবয়ব এ একটা Animation দেখা যাবে। যেটা আমাদের কাছে বেশ ভালই লেগেছে।

এর পেছনে Fingerprint scanner ব্যবহার করা হয়েছে, সেটা মোটামুটি Fast ছিল। Fingerprint scanner এর পজিশন একদম ঠিকঠাক আছে এই ফোনটিতে।

ডিসপ্লে (Display):

এর সামনে ব্যবহার করা হয়েছে 6.59 inches IPS LCD Panel 106.6 cm2 (~84.3% screen-to-body ratio), যার Resolution হচ্ছে Full HD+ (1080 x 2340 pixels) । যেহেতু ডিসপ্লেতে কোন Destruction নেই। তাই H to H Full View Display এ কারণে ডিসপ্লেটি আমাদের কাছে বেশ ভাল লেগেছে।

যেহেতু Full View Display, সে কারণে Video দেখার সময় Better Feel পাওয়া যায়। এবং একই Feel Gaming এর বেলায়ও আপনারা পাবেন। Display Brightness পর্যাপ্ত পরিমাণে ছিল। আমরা আউটডোরে ব্যবহার করে দেখেছি। এবং Direct sunligh-এ ও Visibility বেশ ভালো ছিল, যদি Full Brightness দেন তাহলে। সেই সাথে ডিসপ্লেটি বেশ Colorful । Sharpness,, Details সবকিছু ঠিকঠাক আছে। ধুর্দান্ত ছিল ডিসপ্লেটি। আমাদের কাছে ডিসপ্লেটি এই ফোনের বড় একটা Plus Poient মনে হয়েছে।

যদিও এটাতে AMOLED panel হলে আরেকটু বেশি ভালো হত, যেহেতু এটা একটি মিড রেঞ্জের ফোন। তবে “IPS Panel” ও খারাপ না। আমাদের কাছে ভালোই লেগেছে। বিশেষ করে এতে Video দেখা এবং Gaming করার অভিজ্ঞতা আমাদের কাছে বেশ ভালই লেগেছে।

বাটন এবং পোর্টস (Buttons and Ports):

ফোনটির ডান পাশে ব্যবহার করা হয়েছে power button এবং volume button । নিচের দিকে দেয়া হয়েছে 3.5mm Audio Jack, primary microphone, USB Type-C Port এবং একটি bottom firing speaker। বাম পাশে কোন কিছুই নেই। উপরের দিকে ব্যবহার করা হয়েছে Hybrid Nano Sim Card Slot যেটাতে আপনারা একসাথে দুটো সিম ব্যবহার করতে পারবেন। একটা সিম সেক্রিফাইস করে 512GB পর্যন্ত Expand করতে পারবেন। সেইসাথে উপরে pop-up Selfie Camera দেয়া হয়েছে।

পারফর্মেন্স (Performance):

এই ফোনটি 4GB/6GB RAM Variant এবং 64GB/128GB Internal Memory পাবেন। তবে আমাদের কাছে 6GB RAM & 128GB Internal Memory এর ফোনটি ছিলো টেস্ট ড্রাইভের জন্য।

এই ফোনে দেয়া হয়েছে HiSilicon Kirin 710F (12 nm) chipset । আমরা সবাই জানি 710 হচ্ছে বেশ পুরোনো  একটি Chipset যা আমরা এই ফোনের Older version (Honor 8x)’এ দেখেছিলাম। এখন 710F থেকে 710 কতটুকু আলাদা। আমরা যদি এই দুইটার মধ্যে পার্থাক্য করি তাহলে 710 থেকে 710F-এর মধ্যে তেমন বড় কোন পরিবর্তন নেই। CPUGPU সব কিছু একই আছে এই দুইটার। শুধু আর্কিটেকচার এ একটু পরিবর্তন আসছে তাই নতুন নাম দিয়েছে 710F কিন্তু Performance দুইটাতেই একই। এটাতে CPU হিসেবে রয়েছে Octa-core (4×2.2 GHz Cortex-A73 & 4×1.7 GHz Cortex-A53) । এবং এর GPU হচ্ছে Mali-G51 MP4 ।

এই ফোনে গেমিংয়ের Performance মোটামোটি ভালোই ছিল। এটাতে আমরা HD’তে PUBG খেলেছি, বেশ ভালো  Perform করেছে। এটাতে আমরা বেশি বড় কোন ল্যাগ এর দেখা আমরা পাইনি অকেশনালি Frame drop ছাড়া। সুতরাং Gaming Performance মোটামুটি ভালই ছিল। তবে এখানে মোবাইলের Price-এর কথা যদি চিন্তা করেন তাহলে আরেকটু বেটার হওয়া উচিত ছিল।

সফটওয়্যার এবং ইউআই (Software and UI):

সফটওয়্যার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে EMUI 9.1 Pie । এটাতে এখনো পর্যন্ত Android 10’এর Update পাওয়া যায়নি। তবে ভবিষ্যতে হয়তো পাওয়া যাবে। এবং EMUI এর Interface টি বেশ Clean ছিল। তবে অল্প কয়েকটা ব্লুটওয়ার ছাড়া তেমন কোন সমস্যা আমরা পাইনি।

Day-to-day ব্যবহারে কোন সমস্যা আমরা পাইনি। আমরা এটাতে Multitasking করেছি, YouTube’এ Video দেখা থেকে শুরু করে Internet Browsing সহ সব ধরনের কাজ করেছি কোন ধরনের সমস্যা নেই। একদম Smoothly সব কিছু চলছিল।

ক্যামেরা (Camera):

Back Camera: এর পেছেনে তিনটি Camera ব্যবহার করা হয়েছে। যার প্রাইমারীটি হচ্ছে 48 MP-wide, 8 MP-ultrawide, 2 MP-depth sensor । ডে-লাইটে তোলা ছবি গুলোর Quality বেশ ভালো। ছবিতে Detail এবং Sharpness পর্যাপ্ত পরিমানে ছিল। ছবির কালারগুলো বেশ ভাল ছিল। এবং Low লাইটের ছবি গুলো যদি Night Mode’এ তুললে  বেটার কোয়ালিটির ছবি আসে।

এছাড়া পিছনের Depth Sensor দিয়ে তোলা Portrait Shoot গুলো দুর্দান্ত ছিল। আর Ultrawide দিয়ে ছবি তুললে ডে-লাইটে বেশ ভাল ছবি আসে। তবে Light কমে গেলে Ultrawide থেকে বেশি ভাল ছবি আসে না।

পিছনের Camera দিয়ে Full HD (1080p) 60FPS-এ Video Recording করতে পারবেন। Video Quality ভালোই লেগেছে আমাদের কাছে। তবে এটাতে 4K দেয়া হয়নি কারন Kirin 710F’এ 4K Recording হয় না।

Front camera: এর সামনে Motorized pop-up 16 MP একটি Selfie Camera ব্যবহার করা হয়েছে। সামনের ক্যামেরার ছবি গুলো বেশ  Perform করেছে। সামনের Camera দিয়ে যদি ভাল লাইট কন্ডিশনে  ছবি তুলেন তাহলে অসাধারন ছবি দেয়। তবে ছবি বেশি Zoom করলে হালকা Sharpness ঘাটতি  দেখা যেতে পারে।

সেই সাথে আবশ্যই Suggested থাকবে Beauty Mode Off করে ছবি তোলার জন্য। Beauty Mode দিয়ে ছবি তুললে Sapness, Detail একদই থাকেনা। Beauty Mode Off করলে কিছুটা Sapness, Detail আপনারা পাবেন। তবে Low লাইটের ছবি বেশি ভাল আসে না।  আর Portrait Shoot গুলো  আমাদের কাছে বেশ ভাল লেগেছে। আর সামনের Camera দিয়ে Full HD (1080p) 60FPS-এ Video Recording করতে পারবেন।

ব্যাটারি (Battery):

ফোনটিতে 4000mAh Battery ব্যবহার করা হয়েছে। এই Battery দিয়ে পুরো দিন পার করে দিতে পারবেন। Battery backup নিয়ে কোন দুঃশ্চিন্তা করতে হয় না। তবে সমস্যা হচ্ছে এটাতে Fast Charging Supported না।

বক্সে একটি 10W Charger দেওয়া থাকে। 10W Charger তাই Charging-টা একটু Slow । যেহেতু এই Fast Charging Supported না তাই 10W Charger দিয়ে চার্জ দিতে বেশ লম্বা একটা সময় লাগবে।

এই ছিল আমাদের আজকের Honor 9x এর বিস্তারিত আলোচনা। আশা করি আমাদের আর্টিকেলের মাধ্যমে Honor 9x এর বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। Honor 9x নিয়ে আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকলে Comment করে আমাদের জানাতে পারেন। দেখা হচ্ছে পরবর্তী কোন আর্টিকেলে সে পর্যন্ত সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। “ #Stay_Home #Stay_Safe

প্রতিদিনের বাছাইকৃত সব তথ্যপ্রযুক্তি, টেক নিউজ আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন।

ট্যাগ
আরো দেখুন

সম্পর্কিত পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close